জনগণের কারফিউ নাকি কারফিউ?

0
73
indian-global-news

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী জনগণের উদ্দেশ্যে ভাষণ দিচ্ছিলেন, যখন দেশের মানুষ কয়েকটি শব্দ শুনতে শুরু করলেন। সেই শব্দটি হ’ল – গণতন্ত্র।

প্রধানমন্ত্রী বার্তায় বলেছিলেন, “২২ শে মে রোববার সকাল সাতটায় তাতখেকাতকে জনসাধারণের কারফিউ মেনে চলতে হবে।
যদি এটি প্রয়োজনীয় না হয়, তবে নড়াচড়া করবেন না। প্রচেষ্টাটি স্ব-নিয়ন্ত্রণ, জাতীয় স্বার্থের জন্য আমাদের সংকল্পের প্রতিচ্ছবি হবে। 22 সুমারকেয়ারফোর্সের সাফল্য, এর উদ্ভাবনগুলিও আমাদের চ্যালেঞ্জগুলির প্রতিনিধিত্ব করবে। ”

এছাড়াও, তিনি বলেছিলেন, “আমি 22 মার্চ সোমবার সকলকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।
রবিবার সন্ধ্যায় আমাদের দরজার দরজায় জানালার জানালায় দাঁড়িয়ে আছি। এমনকি ২২ শে মার্চ সন্ধ্যায়, আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় প্রশাসন, মিডিয়া দ্বারা প্রদত্ত তথ্য সম্পর্কে মন্তব্য করতে আমাকে বাধা দেওয়া হয়েছিল। ”

প্রধানমন্ত্রী মোদীর এই ঘোষণার পরে একদিনের পাবলিক কারফুকন ওউ কারফায়ারডেকননায়াকটন্যা চিৎকার শুরু করলেন।

একই সময়ে, এওএর লোকেরা তাদের বক্তব্যে হতবাক হয়েছিলেন, কিন্তু লোকেরা বৈধ উপায়ে কথা বলতে শুরু করেছিল।